হাঙরের সুপারহাইওয়ের সন্ধান

প্রাণীর চলাচলের প্রায় ৭০০ কিলোমিটার (৪৩০ মাইল) বিস্তৃত একটি সুপারহাইওয়ের সন্ধান পেয়েছেন গবেষকেরা প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে সামুদ্রিক। এই পথ ব্যবহার করে চলাচল করে থাকে সামুদ্রিক কচ্ছপ, তিমি হাঙর ও হ্যামারহেড হাঙর । এই পথ কোস্টারিকা উপকূল পর্যন্ত বিস্তৃত ইকুয়েডরের গ্যালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জ এবং কোকোস দ্বীপপুঞ্জের সামুদ্রিক জলাধার থেকে শুরু করে । বিশেষজ্ঞরা সামুদ্রিক প্রাণীর চলাচলের এই সুপারহাইওয়ে সামুদ্রিক জীবের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেছে মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয় । তবে এই পথ ধরে কচ্ছপ ও হাঙর যাতায়াত করার সময় বাসা তৈরি বা খাবারের খোঁজ করে থাকে ।

তবে এই পথ বিপজ্জনক। বাকি পথটা সামুদ্রিক এসব পানির জন্য বিপদ ডেকে আনে। তবে শিকারি জাহাজগুলো এ পথে চলাচল করে দুই প্রান্তেই সামুদ্রিক জলাধার থাকলেও । আর তথ্য বিশ্লেষণ করে বিশেষজ্ঞরা দেখেছেন, বিপন্ন অনেক পরিযায়ী সামুদ্রিক প্রাণী কমে যাচ্ছে । শুধু দ্বীপগুলোর আশপাশে জীববৈচিত্র্যের হটস্পট সুরক্ষা দেওয়াটা যথেষ্ট নয় পরিবেশবাদী গ্রুপ ও বিজ্ঞানীদের জোট মাইগ্রামারের প্রতিষ্ঠাতা ও জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক অ্যালেক্স হেয়ার্ন বলেন । এই পুরো সুপারহাইওয়ে সুরক্ষার জন্য প্রচার করছেন তাঁরা সামুদ্রিক প্রাণীর চলাচলের । এলাকার সুরক্ষা চান তাঁরা ৯৩ হাজার বর্গমাইল বা যুক্তরাজ্যের সমান আয়তনের ।

বর্তমান ২২ কিলোমিটার ব্যাসার্ধ এবং গ্যালাপাগোস দ্বীপের চারপাশে ৭৪ কিলোমিটারের বেশি এলাকাজুড়ে মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকবে এর ফলে কোকোস দ্বীপের চারপাশে । পাহাড়গুলোর শৃঙ্খলা মেনে সরু একটি সুরক্ষিত চ্যানেল তৈরি হবে এতে দুই এলাকার মধ্যে সমুদ্রের নিচের । এই পাহাড়গুলো নেভিগেশনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ গবেষক হেয়ার্ন বলেন, সমুদ্রে ল্যান্ডমার্কের মতো কাজ করা । যা কাজে লাগিয়ে সামুদ্রিক কচ্ছপ ও হ্যামারহেড হাঙর নিজেদের অবস্থান নির্ধারণ করে থাকে লাভায় তৈরি এসব পাহাড় বৈদ্যুতিক তরঙ্গ নির্গত করে, । তবে এসব পাহাড় সামুদ্রিক প্রাণীর স্থান বদলের সময় খাবার ও বিশ্রামের জায়গা হিসেবে কাজ করে।

সবচেয়ে বড় হুমকি হচ্ছে মাছ ধরার বিষয়টি গবেষকেরা বলছেন, এই পরিযায়ী প্রাণীগুলোর । তবে প্রায়ই মাছ ধরার জালে ধরা পড়ে সামুদ্রিক কচ্ছপ ও বিভিন্ন ধরনের হাঙর । অবৈধভাবে শিকার করার ঘটনাও ঘটে হাঙরের মাংস ও পাখনার জন্য জলবায়ু পরিবর্তনের মতো হুমকির সঙ্গে তুলনা করলে মাছ ধরার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করা সহজ তবে মাইগ্রামারের আরেক প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও টার্টল আইল্যান্ড রেস্টোরেশন নেটওয়ার্কের নির্বাহী পরিচালক টড স্টেইনার বলেন, । সমুদ্রসীমায় মাছ ধরার কার্যক্রমে বিধিনিষেধ আনতে পারে উপকূলীয় দেশগুলো তাঁদের । সুরক্ষায় কয়েকটি কাগজে সই করলেই সংরক্ষণপ্রক্রিয়া শুরু হতে পারে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পরিবেশগত এই অঞ্চলের ।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *