যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে পুলিশকে মারধরের অভিযোগ

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টো পথে গাড়ি চালানোর সময় থামতে বলায় হাইওয়ে পুলিশের এক সদস্যকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। রোববার দুপুরে উপজেলার মোকামতলা বন্দরে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত যুবলীগ নেতার নাম আপেল সরকার। তিনি শিবগঞ্জের মোকামতলা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।

হাইওয়ে পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঈদ সফরে যানবাহন চলাচল নির্বিঘ্ন করতে মোকামতলা বন্দরে যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে হাইওয়ে পুলিশ। এ সময় যুবলীগ নেতা আপেল সোনাতলা উপজেলা সড়ক থেকে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কে একটি মাইক্রোবাস চালিয়ে উল্টো দিকে মোকামতলা বন্দরের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় তৌহিদ নামে হাইওয়ে পুলিশের এক সদস্য যুবলীগ নেতা আপেলকে থামতে বলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আপেল ও তার সঙ্গীরা গাড়ি থেকে নেমে পুলিশ সদস্য তৌহিদকে কলার দিয়ে মারধর শুরু করে। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে পুলিশ সদস্য তৌহিদকে চাপা দেয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা জানান, ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও মারধরের ঘটনায় থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।
এ বিষয়ে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে অ্যাপল সরকারের মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। তাই এ বিষয়ে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, হাইওয়ে পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। আপেলের ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছেন ওই যুবলীগ নেতা। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে হাইওয়ে বগুড়া অঞ্চলের পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান বলেন, হাইওয়ে পুলিশের এক সদস্যের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বগুড়া জেলা পুলিশ জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *