মেঘনায় জেলের জালে সাগরের সবচেয়ে দ্রুতগতির মাছ সেইল ফিশ

মেঘনায় জেলের জালে সাগরের সবচেয়ে দ্রুতগতির মাছ সেইল ফিশ

প্রায় ২২ কেজি ওজনের একটি সামুদ্রিক মাছ ধরা পড়েছে মেঘনা নদীতে । আগে কখনো এ অঞ্চলের মানুষ দেখেনি এই মাছটিকে। তবে বিশেষজ্ঞরা মাছটিকে ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় সেইল ফিশ বলছেন । এটিকে স্থানীয়ভাবে পাখি মাছ বলছে মানুষ তবে মাছটির পিঠে বিশাল আকারের পাখনা থাকায় । মো. রিপন মাঝি নামের এক জেলের জালে মাছটি ধরা পড়ে গতকাল শুক্রবার রাতে । ৩৫০ টাকা কেজি দরে সাড়ে সাত হাজার টাকায় মাছটি বিক্রি করেন পরে তিনি স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে ।

লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার পাটারির হাটের জারির দোনা মাছঘাট এলাকায় বিক্রি করা হয়েছে প্রায় সাত ফুট লম্বা মাছটি গতকাল দিবাগত মধ্যরাতে । নতুন এ মাছটি দেখে উৎসুক অনেকে ভিড় করছে । তবে সফিকুর রহমান নামের এক ব্যবসায়ী এত বড় পাখনাওয়ালা মাছ দেখে বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন মাছটি আগে কখনো দেখিনি আমি । আর এটি দেখতে পাখির মতো । তাই মন ভরে দেখছি পাখি মাছটি কিনতে তো আর পারব না।

তবে ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় সেইল ফিশের বৈজ্ঞানিক নাম Istiophorus platypterus । আর সেইল ফিশের আরেকটি জাত রয়েছে আটলান্টিক সেইল ফিশ (Istiophorus albicans) মাছের । অনেক মৎস্য বিশেষজ্ঞের মতে সেইল ফিশ মহাসাগরের সবচেয়ে দ্রুতগতির প্রাণী যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ন্যাশনাল ওশান সার্ভিসের তথ্যে দেখা যায় । তর্কসাপেক্ষে যা ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে মাছটি ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার গতিতে ছুটতে পারে । আর নৌকার পালের মতো এর পৃষ্ঠীয় পাখনাটি দেখতে হয় বলে একে সেইল (পাল) ফিশ বলা হয় । তবে মাছটি শিকারের কাছে এসে রং পরিবর্তন করতে পারে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় কয়েকজন সঙ্গী নিয়ে লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে মাছ ধরতে যান জেলে মো. রিপন মাঝি । তাঁরা হতাশ ছিলেন তিন-চার ঘণ্টায় কোনো মাছ না পেয়ে । তবে রাত ১০টার দিকে জাল তুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন। জালে বড় কোনো মাছ আটকা পড়েছে তবে জাল প্রায় অর্ধেক তোলার সময় বড় একটা ঝাঁকি দিলে সবাই বুঝতে পারেন । আর প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা সময় নিয়ে জাল টেনে নৌকায় তুলে দেখেন বড় এক পাখি মাছ ধরা পড়েছে । তার পরে দ্রুত মাছটি নৌকায় তুলে সোজা চলে আসেন মাছবাজারে ।

মাছটি সামুদ্রিক কমলনগর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আবদুল কুদ্দুছ বলেন । তবে বড় পাখনা থাকায় এটিকে পাখি মাছ বলা হয় । তবে বিরল এ মাছ আগে কখনো এ অঞ্চলের মানুষ দেখেনি । আর এ কারণে মাছটি দেখার জন্য উৎসুক মানুষ ভিড় করছে জানান তিনি ।প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এস এম মহিব উল্যাহর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয় মাছটি সম্পর্কে জানতে ঢাকা মৎস্য অধিদপ্তরের। তবে হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো ছবি দেখে তিনি জানান, মাছটির নাম সেইল ফিশ । তবে সাগরের সবচেয়ে দ্রুতগামী কয়েকটি মাছের মধ্যে এটি একটি । আর এ মাছ সাড়ে ৩ মিটার পর্যন্ত দীর্ঘ হ য়। তবে মাছটি ১০০ কেজি পর্যন্ত ওজন হয়ে থাকে । আর মাছের একটি পৃষ্ঠীয় পাখনা থাকে, যা অনেক বড় হয় । তবে এতে অন্য কোনো মাছ তাকে দেখতে পায় না । তবে মাছটি সাগর থেকে ভুলক্রমে নদীতে চলে আসতে পারে।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *