ডায়রিয়া সম্পর্কে জানি…..

দিনে অন্তত তিনবার পাতলা পায়খানা হলে ডায়রিয়া হয়েছে বলে মনে করা হয়।ডায়রিয়ায় সবচেয়ে বেশি ভোগে শিশুরা।ডায়রিয়া হলে দেহে পানি ও লবণের সল্পতা দেখা দেয়।দেহের পানি কমে দায়,রোগী দুর্বল হয়ে পড়ে। এ সময় যথাযথ চিকিৎসা না করা হলে রোগী মারা যেতে পারে।

ডায়রিয়া রোগের লক্ষণ গুলো হলো:ঘন ঘন পাতলা পায়খানা হয়,বারবার বমি হয়,বারবার পিপাসা পায়,মুখ ও জিহ্বা শুকিয়ে যায়,চোখ বসে যায়। এ সময় রোগী ঠিকমতো খেতে চায় না,একসময় রোগী নিস্তেজ হয়ে পড়ে।

ডায়রিয়া হওয়ার কারণ:দূষিত পানি পান করলে, বাসি পচা খাবার খেলে,অপরিচ্ছন্ন থালা বাসন এ খাবার খেলে,খাবার আগে হাত ভালোমত পরিষ্কার না করলে ডায়রিয়া রোগ হয়।

ডায়রিয়া হলে রোগীকে খাবার স্যালাইন খেতে হবে। ঘরে থাকা উপাদান দিয়ে নিজেও বানিয়ে নেওয়া যায় এই স্যালাইন।তবে আজকাল স্যালাইন বাজারে কিনতে পাওয়া যায়,এগুলোতে প্যাকেটের গায়ে স্যালাইন বানানোর নিয়ম লেখা থাকে।ওই নিয়ম অনুযায়ী স্যালাইন বানিয়ে ও খাওয়া যায়।আর পাতলা পায়খানা বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত স্যালাইন খাওয়া চালিয়ে যেতে হবে।ডায়রিয়া সেরে যাওয়ার পরেও অন্তত এক সপ্তাহ রোগীকে বাড়তি খাবার দিতে হবে।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *