ওটিটি প্ল্যাটফর্ম: চূড়ান্ত নীতিমালার বিষয়ে অগ্রগতি জানাতে নির্দেশ হাইকোর্টের

ওভার দ্য টপ (ওটিটি) নির্ভর বিভিন্ন ওয়েব প্ল্যাটফর্মে অনৈতিক ও আপত্তিকর ভিডিও কনটেন্ট পরিবেশন রোধ এবং এসব তদারকি ও রাজস্ব আদায়ে চূড়ান্ত নীতিমালার বিষয়ে পদক্ষেপ ও অগ্রগতি জানিয়ে প্রতিবেদন দিতে বলেছেন হাইকোর্ট। আগামী চার মাসের মধ্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) আদালতে এ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।  

মঙ্গলবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। পরবর্তী শুনানির জন্য ২৬ মে দিন রেখেছেন আদালত।

ওটিটি-নির্ভর বিভিন্ন ওয়েব প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অনৈতিক ও আপত্তিকর ভিডিও কনটেন্ট পরিবেশন রোধে নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে ওই সব প্ল্যাটফর্ম নিয়ন্ত্রণ-তদারকিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানভীর আহমেদ ২০২০ সালে রিট করেন। প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ওই বছরের ৮ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট রুলসহ আদেশ দেন। রুলে ওটিটি-নির্ভর বিভিন্ন ওয়েব প্ল্যাটফর্ম তদারকির জন্য নীতিমালা প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়।

এরপর গত বছরের ১৮ জানুয়ারি হাইকোর্ট তিন মাসের মধ্যে খসড়া নীতিমালা দাখিল করতে নির্দেশ দেন। পরে বিটিআরসি খসড়া নীতিমালা আদালতে দাখিল করে। এর ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার বিষয়টি ওঠে। আদালতে রিটের পক্ষে আবেদনকারী আইনজীবী তানভীর আহমেদ নিজেই শুনানিতে ছিলেন। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী নাদিয়া নাজনীন। এর আগে বিটিআরসির পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খন্দকার রেজা–ই–রাকিব।

পরে আইনজীবী খন্দকার রেজা-ই-রাকিব বলেন, নীতিমালাটি চূড়ান্ত করতে বিশেষজ্ঞ, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও অংশীজনদের মতামত প্রয়োজন। নীতিমালা চূড়ান্ত করার ক্ষেত্রে কিছু প্রক্রিয়াগত বিষয়ও আছে। তাই কিছু বিষয়ে আদালতের অনুমতি চেয়ে বিটিআরসির পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়ে নীতিমালা চূড়ান্ত করতে বলেছেন আদালত। চূড়ান্ত করার জন্য কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা জানিয়ে আগামী চার মাসের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতেও বলা হয়েছে।

Leave a Comment