শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে রাজপথেই শিক্ষার্থীদের ক্লাস

একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান উদ্বোধনের দাবিতে রাজশাহীতে চলমান আন্দোলনের অংশ হিসাবে শিক্ষার্থীরা এবার মহাসড়কে একটি প্রতীকী ক্লাস ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে।


বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটায় নগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে এ জাতীয় কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। ক্লাসের প্রতিপাদ্য ছিল ‘সমসাময়িক বাংলাদেশ এবং শিক্ষা পরিস্থিতি’।


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের অধ্যাপক শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিয়েছিলেন। ইফতেখারুল আলম মাসউদ। কর্মসূচির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে ক্লাসে উপস্থিত ছিলেন রাকসুর সাবেক ভিপি রাগিব আহসান মুন্না, সাংবাদিক আমানউল্লাহ আমান, ছাত্রনেতা তামিম শিরাজী, আবদুর রহমান নাবিল প্রমুখ।

এই সময়, আরবিআই অধ্যাপক নির্ধারিত সামগ্রীতে একটি ক্লাস নেন। তারপরে একজন শিক্ষার্থী দুটি বাড়ির নাম পড়ে এবং স্কুলে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের ছোটবেলায় পড়িয়ে দেয়।

পরে মোঃ জাকারিয়া নামের এক শিক্ষার্থী আরবিআই অধ্যাপকের সামনে নামতা আবৃত্তি করেন এবং দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার প্রতিবাদে ভুল করেছিলেন। দুটি ইউনিট তিনটি, দুটি ডাবল পাঁচটি, তিনটি ডাবল সাতটি, আটটি ডাবল সতেরোটি – এটি একটি ভুল এবং শিক্ষার্থীরা হাত বাড়িয়ে একটি প্রতীকী বাধা তৈরি করে।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী ইশতিয়াক আহমেদ। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোহাব্বত হোসেন মিলন, কুষ্টিয়া ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তৌকি ওয়াসিফ, রাজশাহী নতুন সরকার। এতে ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী নাদিম সিনা, শিরোইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাসুদ রানা এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান কর্মসূচিতে আরবি বিভাগের অধ্যাপক ড। ইফতেখারুল আলম মাসউদ বলেন, এভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা চরম হতাশায় ভুগছে। এর প্রভাব তাদের মানসিক যন্ত্রণা দিচ্ছে। আমাদের এই পরিস্থিতি শেষ করতে হবে এবং দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে হবে। সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা শিক্ষার আলো পাওয়ার পরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে পারবে।

Leave a Comment