মোবাইল-টাকা ছিনিয়ে নিয়ে চলন্ত মাইক্রো থেকে ফেলা হলো কুবি শিক্ষার্থীকে

মোবাইল-টাকা ছিনিয়ে নিয়ে চলন্ত মাইক্রো থেকে ফেলা হলো কুবি শিক্ষার্থীকে

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে মাইক্রোবাসে তুলে অপহরণের চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে। পরে শিক্ষার্থীর কাছে থাকা মোবাইল ও ছিনিয়ে নিয়ে নির্যাতনের পর চোখে মরিচের গুঁড়া মেখে দিয়ে চলন্ত মাইক্রোবাস থেকে ফেলে দেয়া হয়েছে। ছিনতাইয়ের শিকার ইমতিয়াজ আহমেদ সুমন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। সুমনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শুক্রবার জরুরি প্রয়োজনে তিনি কুমিল্লা থেকে ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশ্যে কুমিল্লার পদুয়ারবাজার থেকে একটি মাইক্রোবাসে ওঠেন।

মাইক্রোবাসটি কোটবাড়ি বিশ্বরোড অতিক্রম করে আবার চট্টগ্রাম অভিমুখী চলতে শুরু করলেই গাড়িতে থাকা যাত্রীবেশী পাঁচজন লোক তার হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করে। এ সময় পরিবার থেকে এক লাখ টাকা দাবি করা হয়। সুমন বলেন, ‘নির্যাতনের একপর্যায়ে আমার সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন নিয়ে যায় তারা। আর আমার মানিব্যাগে ১০ হাজার টাকা পেয়ে আমাকে পদুয়ার বাজারে নূরজাহান রেস্টুরেন্টের পাশে ফেলে রেখে যায়। ফেলে রাখার আগে আমার দু’চোখে মরিচ গুঁড়া মেখে দেয় তারা।’

এ ঘটনার পর সুমন চোখে পানি দিয়ে একটি অটোতে করে বাসায় চলে যান। বাসায় গিয়ে ৯৯৯ নম্বরে কল করে সদর দক্ষিণ উপজেলা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন। সদর দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, বিষয়টি যেহেতু আমাদের থানার এরিয়া। লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।এ বিষয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা পুলিশ প্রশাসনকে বলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।বর্তমানে সুমন ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চোখের চিকিৎসা নিচ্ছেন।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *