মৃতদের চিতাভস্ম দিয়ে পার্ক তৈরি হবে এই শহরে

কোভিডের দ্বিতীয় তরঙ্গে লক্ষ লক্ষ মানুষ মারা গেছে। অবস্থা এমন ছিল যে কবরস্থানে জায়গা নেই। দিনরাত শ্মশানে চুল্লি জ্বালিয়েও শ্মশান সম্পন্ন করা যায়নি। কোভিডে মৃতদের মৃতদেহ জমা হতে থাকে। শ্মশানের পর ছাই জমা হতে থাকে। কোভিড নিয়মের কারণে অনেক পরিবার তা ভাসাতে পারেনি। এবার ভোপাল প্রশাসন এই ছাই ব্যবহার করতে চায়। কোভিদায় মৃতদের স্মরণে পার্কটি তৈরি করতে চায়।


15 মার্চ থেকে 15 জুন পর্যন্ত ভোপালের ভাদভাদা রেস্ট ঘাটে 6,000 মৃতদেহ দাহ করা হয়েছে। এখন 21 টি ট্রাক ছাই পড়ে আছে। কঠোর নিয়মের কারণে পরিবার আসতে পারেনি। শ্মশান কমিটি এই ছাই দিয়ে একটি 12,000 বর্গফুট পার্ক তৈরি করতে চলেছে।
শ্মশান ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান মমতেশ শর্মা বলেন, অনেক পরিবার হাড়গুলো কনোমে নিয়ে গেছে। কিন্তু ছাই নিতে পারিনি। হালকা পানিতে ফেলে দিলে দূষণ বেড়ে যাবে। তাই মাটি, গোবর, কাঠের গুঁড়ো এবং বালি মিশিয়ে পার্ক তৈরি করা হবে। ওই পার্কে গাছ লাগানো হবে। মৃতের পরিবার চাইলে তারা তাদের প্রিয়জনের স্মরণে চারা রোপণ করতে পারে। আপনি এই গাছ লাগানোর সময় পাবেন 5 থেকে 6 জুলাই পর্যন্ত।


মমতেশ শর্মা যোগ করেন যে পার্কে 3,500 থেকে 4,000 চারা রোপণ করা হবে। তাদের গাছে পরিণত হতে 15 থেকে 18 মাস সময় লাগবে। জাপানের উমিয়াওয়াকি প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। এই প্রযুক্তি সহজেই ঘন বন তৈরি করতে পারে।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *