মিডিয়ায় ঐশী গডফাদার

জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী মিশন এক্সটিম’ সিনেমার মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় যাত্রা শুরু করতে চলেছেন । তবে সিনেমাটি ২০২০ সালের ঈদুল ফিতরে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল । তবে আবার এল ঈদুল ফিতর মহামারির কারণে তা আর হয়নি বছর ঘুরে । সিনেমাটির মুক্তি নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে এবারও করোনা পরিস্থিতির কারণে । এই অভিনেত্রী, এমনটা ভেবেই তাঁর বন্ধু-বান্ধবী ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা সান্ত্বনা দিতে ফোন করছেন তাঁকে শেষ মুহূর্তে মুক্তি না পেলে খুব কষ্ট পাবেন ।

বরং দেশের পরিস্থিতি নিয়েই বেশি ভাবছেন ঐশী তবে এই মুহূর্তে নিজের সিনেমা নয়। তবে ক্যারিয়ারের অভিষেক সিনেমা নিয়ে সবার মতোই আলাদা আগ্রহ ছিল এই তরুণ অভিনেত্রীর।সিনেমাটি নিয়ে তিনি যেমন আগ্রহী তেমনি ভয়ের মধ্যেও রয়েছেন । সেটা নিয়ে চিন্তিত তিনি আরিফিন শুভর সঙ্গে তাঁর অভিনয়কে দর্শক কীভাবে নেবেন।বছরের শুরুতেই সিনেমাটি নিয়ে নিজ উদ্যোগে প্রচারের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তবে ।

ঐশী ভেবেছিলেন দর্শকের সঙ্গে ঈদে সিনেমাটি হলে গিয়ে দেখবেন । সেটা আর হচ্ছে না।‘ তবে অনেকেই আমাকে ফোন দিচ্ছেন তাই মন খারাপ হওয়াই স্বাভাবিক জানিয়ে ঐশী বললেন। তবে সান্ত্বনা দিয়ে বলছেন, মন খারাপ কোরো না, শক্ত থাকো। তবে ছবিটি এই ঈদে মুক্তি না পেলেও আগামী ঈদে মুক্তি পাবে। আর সিনেমাটি তোমার ক্যারিয়ার ঠিক করে দেবে। তবে প্রথম সিনেমা সুপারহিট হলে ক্যারিয়ারের মোড় ঘুরে যাবে! সবাই টেনশন করছে এসব ভেবে আমার জন্য। সিনেমা মুক্তি নিয়ে একটুও মন খারাপ হয়নি। কিন্তু মন খারাপ হওয়া উচিত ছিল আমার দেশের অর্থনীতির কথা ভেবে।

বাংলাদেশের মুকুট জেতেন ঐশী ২০১৮ সালে মিস ওয়ার্ল্ড । আর তাঁর ইচ্ছা ছিল সিনেমায় অভিনয়ের। তা পরের বছর ২০১৯ সালে এসে সেই সুযোগ পেয়ে যান তিনি। করোনার কারণে কোনো সিনেমাই মুক্তি পায়নি পরপর তিনটি ছবিতে অভিনয় করলেও । তবে তাঁর ইচ্ছা সিনেমায় অভিনয় করে যাওয়া। তিনি পা ফেলতে চান তবে বুঝেশুনেই । পরিচালক বুঝে সিনেমা করবেন তিনি গল্প, চিত্রনাট্য,। তবে সেখানে এই মুহূর্তে কিছুটা বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনা।

‘আমার সিনেমা আগে রিলিজ হোক।সিনেমাকে ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়া প্রসঙ্গে ঐশী বলেন দেখি দর্শক কীভাবে নেয়। আর আমার প্রথম সিনেমায় নতুন হিসেবে কিছু ভুল আছে। তবে আশা করছি, দর্শক সেটা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আর তা ছাড়া হাতে আরও সিনেমা আছে, সেগুলো দর্শক কীভাবে নেয় সেটা দেখেই এগোতে চাই।’

এখনো গ্রামের মেয়ে বলে পরিচয় করিয়ে দেন ঐশী হাসিমুখে নিজেকে । আর গ্রামের স্কুল থেকে এসএসসি পাস করে ঢাকায় আসেন। তবে স্বপ্ন ছিল অভিনেত্রী হবেন। আর পড়াশোনার পাশাপাশি একটু একটু করে তাঁকে ক্যারিয়ার নিয়ে এগোতে হয়েছে। আর ছিল না পরিচিত তেমন কেউ।

‘আমার জার্নিটা ছিল সৎভাবে এগিয়ে যাওয়ার মিডিয়াভীতি নিয়ে বললেন। সব জায়গার মতো মিডিয়াতেও ভালো–খারাপ মানুষ আছে কারণ। তবে সেটা নিয়ে মিডিয়ায় আসার আগে অনেক ভয় ছিল। আর আদৌ আমি কাজ করতে পারব কি না। কোনো খারাপ অভিজ্ঞতার ভেতর দিয়ে যেতে হয়নি তবে কাজ শুরুর পরে আমাকে খারাপ ।মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি সৎ থেকে কাজ করতে পারছি,। আর এ জন্য আমি ভাগ্যবান। তবে এ জন্য পরিশ্রমটা আগে দরকার।’ ‘সিনেমায় কাজ করা মানেই আমার ভবিষ্যৎ নিশ্চিত না সিনেমায় অনিশ্চিত ক্যারিয়ারের কথা জানিয়ে বললেন। আর আমাকে নিজের যোগ্যতা দিয়ে টিকে থাকতে হবে। তবে দর্শকই আমার শক্তি। আর তারাই পারে আমাকে টিকিয়ে রাখতে। তবে মিডিয়ায় আমার কোনো “গডফাদার” নেই, যাঁরা আমাকে ব্যর্থ হওয়ার পরেও বারবার অভিনয়ের সুযোগ দেবেন।’

রাত জাগা ফুল’ নামে দুটি ছবির শুটিং শেষ করেছেন ও মিশন এক্সটিম’–এর পার্ট-১ ও পার্ট–২ শেষ করেই ঐশী ‘আদম’ । আর দুটি ছবিই মূলধারার বাইরের, কিছুটা ভিন্ন ঘরানার। তবে এ মুহূর্তে ছবিগুলোর পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। আর এই বছরেই তিনটি ছবিরই মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সম্প্রতি তাঁর আরও কয়েকটি সিনেমায় শুটিংয়ের কথা ছিল। করোনার কারণে তা আপাতত বন্ধ।

Leave a Comment