মামলার আসামি ধরতে গিয়ে মারধরে কনস্টেবল আহত

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে যৌতুক মামলায় পরোয়ানাভুক্ত মিন্টু মিয়া (৩৫) নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন দুই পুলিশ সদস্য।

রোববার (৬ জুন) রাতে উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার টনকার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরোয়ানাভুক্ত আসামি মিন্টু মিয়া ওই এলাকার আফছার আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার রাতে যৌতুক মামলায় পরোয়ানাভুক্ত আসামি মিন্টু মিয়াকে গ্রেফতার করতে তার বাড়িতে যায় ফুলবাড়ী থানা পুলিশের একটি দল। মিন্টুকে গ্রেফতারের খবর ছড়িয়ে পড়লে স্বজনরা তাকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় তারা পুলিশ সদস্যদের মারধর করেন। এতে পুলিশের দুই সদস্য আহত হন। আর কৌশলে পালিয়ে যায় আসামি মিন্টু। পরে ফুলবাড়ী থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামি ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত চারজনকে আটক করে।

আটককৃতরা হলেন- ওই এলাকার ওবায়দুল হকের ছেলে সেলিম মিয়া, মনির উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম, ছয়ফার রহমানের ছেলে মজিদুল ইসলাম ও আব্দুর রহিমের ছেলে হামিদুল ইসলাম।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজীব কুমার রায় বলেন, ‘আহত দুই পুলিশ সদস্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। পলাতক আসামি মিন্টু মিয়াকে গ্রেফতারে তৎপর রয়েছে পুলিশ।’

ওসি বলেন, ‘পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে আটক চারজনসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪০-৪৫ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। মামলায় আটক চারজনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হয়। বিচারক তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।’

Leave a Comment