ভাল্লাগেনা

আমরা অনেকেই আজকাল উঠতে বসতে বলি ভালোলাগেনা।হাসতে হাসতে ভালোলাগেনা নিয়ে লিখালিখি করছি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।
বলাবলি করি আমি ভালোলাগেনা রোগে আক্রান্ত।

আমাদের কাজ করতে ভালোলাগেনা।বসে থাকতে ভালোলাগেনা, নিজের যত্ন নিতেও অনীহা কাজ করে, পড়তে ভালোলাগেনা, এটা ভালোলাগেনা ওটা ভালোলাগেনা লেগেই আছে।
আসলে ঠিক ওই সময়টায় নিজেকে কখনো জিজ্ঞেস করে দেখেছেন যে আসলে ভালোলাগেটা কি!!
অথবা ঠিক ওই সময়টাতে কি করলে আপনার ভালোলাগবে!!
হয়তো ওই সময়টায় আপনার মনে পড়ে গিয়েছে কিছু খারাপ লাগার কথা,হয়তো হুট করেই এমন কিছু হয়েছে যেটা আপনি সহজভাবে মেনে নিতে পারছেন না কিন্তু আপনি এই জিনিসটাই নিজের কাছে অথবা অন্যের কাছে আড়াল করে বলছেন যে আপনার ভালোলাগছেনা।
আবার অকারণেও আপনার মন খারাপ থাকতেই পারে।
কারণে হোক বা অকারণে আপনাকে মানতে শিখতে হবে পৃথিবীর সবকিছু শুধু আপনার জন্য অথবা আপনার কথা ভেবে হয়না।তাই সবসময় সবকিছু আপনার মন মতো হবেনা এটাই স্বাভাবিক।
জীবনে বেশিরভাগ কাজই আমরা দায়িত্ববোধ থেকে করি অথবা অভ্যাসবশতই করে থাকি।
কোনটা আনন্দ নিয়ে করি আবার পরবর্তীতে কোনটার ফলাফল সরুপ আমরা আনন্দ পেয়ে থাকি।
যেমন পড়তে ভালোলাগেনা কিন্তু পরীক্ষার ফলটা যখন ভালো হয় তখন কিন্তু ঠিকই আমাদের মধ্যে ভালোলাগা কাজ করে।
পড়াশুনাটা কষ্ট,চাকরি করাটা কষ্টের কিন্তু এর মানে কিন্তু অলস বসে থাকাটা আরামের হলেও খুব একটা আনন্দের না।
তাই জীবনে সবকিছু ভালোলাগবেনা এটা মেনে নিয়েই সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। আর আপনি যদি ভালো না লাগাটাকেই প্রাধান্য দেন তাহলে আপনি জীবনে যা হতে চাচ্ছেন তা কখনোই সুবিধাজনক হবেনা। নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে শিখতে হবে। নিজের মধ্যে জেদটা নিজেকেই তৈরি করে নিতে হবে।সবসময় জীবনের সহজ রাস্তাটা বেছে না নিয়ে, কঠিন রাস্তা গুলোকে ভেঙে ভেঙে ছোট করে নেন।সহজ হয়ে যাবে।আর তখনই আপনার কাংখিত জায়গাটাও পেয়ে যাবেন

Reporter: নও মি ন

Leave a Comment