বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম

বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, মাতৃত্ব একটি আনন্দদায়ক অনুভূতি। যদি কোনও মহিলা গর্ভবতী হওয়ার কথা ভাবেন,তবে প্রথমে তার মাসিক চক্রের দিকে নজর দেওয়া উচিত। কারণ ওভুলেশন হল সমস্ত গর্ভধারণ সমস্যার উত্তর। একজন মহিলার ডিম্বাশয় থেকে ডিম্বাণু নিঃসরণকে ওভুলেশন বলে। প্রতি মাসে একটি নির্দিষ্ট সময়ে ওভুলেশন ঘটে। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম ডক্টর বিশাল মাকওয়ানা বলেন, এই সময়ে নারীর শরীর থেকে নির্গত ডিম্বাণু পুরুষের শুক্রাণুর সঙ্গে মিলিত হওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকে। আর তাই এই সময়ে সহবাস করলে সহজেই গর্ভবতী হতে পারেন। নারী যদি মা হতে না চান, তাহলে এই সময়ে সহবাস না করে গর্ভধারণ এড়ানো যায়।

বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম

আপনি যদি সন্তান নেওয়ার পরিকল্পনা করে থাকেন,তাহলে আপনার গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়ানোর জন্য সর্বোত্তম পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করতে হবে। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, গর্ভধারণের চেষ্টা করার সময় আপনার জন্য সেরা যৌন প্রক্রিয়াগুলি এখানে আলোচনা করা হয়েছে।

ওভুলেশনের সময় মহিলারা সবচেয়ে ফার্টাইল হয়। এই সময়ে সহবাস করলে গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই বেড়ে যায়। আপনার ওভুলেশন চক্রের ট্র্যাক রাখা বা একটি ওভুলেশন কিট ব্যবহার আপনাকে সহবাসের সঠিক সময় অনুমান করতে সাহায্য করতে পারে।

গর্ভধারণের চেষ্টা করা সমস্ত দম্পতি সফলভাবে গর্ভধারণের জন্য যতবার সম্ভব সহবাস করা উচিত। তবে মনে রাখবেন এটি এমন কোনো কাজ নয় যা আপনাকে প্রতিদিন শেষ করতে হবে। উভয়ে প্রেম করার প্রক্রিয়া উপভোগ করতে হবে,যৌনতা যদি একটি একঘেয়ে দৈনন্দিন রুটিনের অংশ হয়ে ওঠে,তবে আপনি কেবল এতে আগ্রহ হারাবেন না,এটি আপনার সঙ্গীর সাথে আপনার সম্পর্ককেও প্রভাবিত করবে।

আপনার যৌন জীবনকে আকর্ষণীয় করতে আপনি ব্যবহার করতে পারেন এমন বেশ কয়েকটি বিকল্প  উপায় রয়েছে। আপনি বিভিন্ন সেক্স পজিশন, রোল-প্লে, ফোরপ্লে, খেলনা, লুবস, কসপ্লে ইত্যাদি চেষ্টা করতে পারেন। এমনকি আপনি যেখানে সেক্স করেন সেই জায়গাটাও পরিবর্তন করতে পারেন।

বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের উপযুক্ত সময়

বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের উপযুক্ত সময়, গর্ভবতী হওয়ার জন্য আপনাকে জানতে হবে যে, মাসের কোন সময় আপনার ওভুলেশন হচ্ছে । কারণ এই সময়কাল বিভিন্ন মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা সময়ে হয়ে থাকে । এটি সাধারণত ২৮ দিনের মাসিক চক্রের ১৪-১৬দিনের কাছাকাছি ঘটে। কিন্তু সব নারীর ২৮দিনের মাসিক চক্র হয় না। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, সাধারণত এই মাসিক চক্র ২৬-৩২ দিন হয়। এবং একজন মহিলার পিরিয়ড শেষ হওয়ার ১০ থেকে ১৯ তম দিনে ওভুলেশন ঘটে। পরবর্তী মাসিকের প্রায় ১২থেকে ১৬দিন আগে।

আপনার ওভুলেশনের দিনক্ষণ ও লক্ষণ

আপনার ওভুলেশনের দিনক্ষণ ও লক্ষণ, মহিলারা বিভিন্ন উপসর্গ থেকে তাদের ওভুলেশন লক্ষণ বুঝতে পারেন। এই সময়ে সাদা স্রাব স্বাভাবিকের থেকে আলাদা হয়ে থাকে। যোনি থেকে যে তরল বের হয় তা ঘন হয়ে যায়। এই সময়ে মহিলাদের শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, কিছু মহিলা ওভুলেশনের সময় হালকা তলপেটে ব্যথা অনুভব করেন যা কয়েক মিনিট বা এমনকি কয়েক ঘন্টা স্থায়ী হতে পারে।

মা হতে ইচ্ছুক মহিলারা ওভুলেশন কিটের সাহায্য নিতে পারেন। ওভুলেশনের আগে প্রস্রাবে লুটেইনাইজিং হরমোনের বৃদ্ধি দ্বারা এটি সনাক্ত করা যেতে পারে। অনেক নারীর স্তন এ সময় বেশি সংবেদনশীল হয়ে পড়ে। বমি বমি ভাব এবং মাথাব্যথাও হয়।

সেই সঙ্গে এই সময়ে শারীরিক সম্পর্কের ইচ্ছাও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। ডিম্বাশয় ত্যাগ করার পর,ডিম্বানু ২৪ থেকে ৩৬ ঘন্টার জন্য শরীরে থাকে। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম তাই, বাচ্চা নেওয়ার জন্য পিরিয়ডের ১০তম দিন থেকে ২০ তম দিন পর্যন্ত এক দিন পর পর সহবাস করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

ইসলামিক নিয়মে বাচ্চা নেওয়ার নিয়ম

ইসলামিক নিয়মে বাচ্চা নেওয়ার নিয়ম, একজন মানুষের ধার্মিক সন্তান তখনই হয় যখন তারা সহবাসের ইসলামিক নিয়ম মেনে চলতে পারে। কেননা সহবাসের ইসলামি নিয়ম মেনে চললে শয়তান সেই সঙ্গমে প্রবেশ করতে পারে না এবং সেই মিলন থেকে একটি নেককার সন্তানের জন্ম হয় যেখানে শয়তান প্রবেশ করতে পারে না।

প্রত্যেক মানুষই চায় একটি গুণী সন্তান জন্মগ্রহণ করুক,কারণ গুণী সন্তান হলে জান্নাতে যেতে পারবেন। আর একজন ধার্মিক সন্তান কখনো পিতামাতাকে অসম্মান করে না। একজন গুণী সন্তান সর্বদা তার পিতামাতাকে তার সমস্ত হৃদয় দিয়ে ভালবাসবে।

সন্তান দেওয়ার একমাত্র মালিক মহান আল্লাহ তা’য়ালা। ইসলামিক নিয়মে বাচ্চা নেওয়ার নিয়ম, আল্লাহ চাইলে কি না করতে পারে। তাই বাচ্চা নেওয়ার জন্য স্বামী-স্ত্রীর সহবাসের আগে অবশ্যই দোয়া পড়ে নিতে হবে।বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম  আপনি যদি সহবাসের দোয়া পাঠ করেন তবে শয়তান আপনার ক্ষতি করতে পারবে না এবং সেই সহবাসে শয়তান আপনার সামনে আসতে পারবে না। মহান আল্লাহ তা’য়ালা আপনার মনের আশা পূরন করে দিবেন ইনশআল্লাহ।

স্বামী-স্ত্রী মিলনের আগে যে দোয়া পড়তে হয়-

بِسْمِ اللّهِ اللّهُمَّ جَنِّبْنَا الشَّيْطَانَ وَ جَنِّبِ الشَّيْطَانَ مَا رَزَقْتَنَا
উচ্চারণ : ‘বিসমিল্লাহি আল্লাহুম্মা জান্নিবনাশ শায়ত্বানা ওয়া জান্নিবিশ শায়ত্বানা মা রাযাক্বতানা।

অর্থ : ‘হে আল্লাহ! তোমার নামে (যৌন মিলন বা সহবাস) আরম্ভ করছি, তুমি আমাদের (স্বামী-স্ত্রী উভয়ের) কাছ থেকে শয়তানকে দূরে রাখ। আমাদের এ মিলনের ফলে যে সন্তান দান করবেন, সে সন্তানকেও শয়তান (যাবতীয় আক্রমণ) থেকে দূরে রাখ।’

অনেকেই মুখে পান চিবাতে চিবাতে সহবাসে লিপ্ত হয়ে থাকে। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, সহবাসের সময় মুখে খাবার নিয়ে সহবাস করবেন না। কারণ মুখে খাবার নিয়ে সহবাস করলে আপনার এবং আপনার স্ত্রীর বিভিন্ন রোগ হতে পারে। তাছাড়া ইসলামে মুখে খাবার নিয়ে সহবাস করা নাজায়েজ।

সহবাসের সময় আপনারা সমস্ত জামাকাপড় খুলে ফেলবেন না,তবে কিছু আপনার শরীরের উপর রাখুন। আর সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি চাদর দিয়ে পুরো শরীর ঢেকে রাখতে পারেন। এর দ্বারা শয়তান আপনার সাথে সহবাস সামিল হতে পারবে না। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, আপনি যদি কোন পোশাক না পরেন তাহলে শয়তান সেই সহবাসে লিপ্ত হতে পারে। আমরা সবাই চাইলে ইসলামিক মিলনের নিয়ম মেনে চলতে পারি, কারণ ইসলামিক নিয়মে মিলন খুবই সহজ।

গর্ভধারণের জন্য সেরা সেক্স পজিশন

গর্ভধারণের জন্য সেরা সেক্স পজিশন, গর্ভধারণের চেষ্টা করার সময় স্বামী-স্ত্রী উভয়ের মাঝে আকর্ষণীয় করে তুলতে বিভিন্ন সেক্স পজিশনের চেষ্টা করতে পারেন। সফল গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়াতে এখানে ৬টি সেরা সেক্স পজিশনের আলোচনা করা হলো।

রিভার্স কাউগার্ল

রিভার্স কাউগার্ল, এটি মহিলাদের জন্য সবচেয়ে ওয়াইল্ড সেক্স পজিশনগুলির মধ্যে একটি,যা মহিলাকে সমস্ত ক্ষমতা দেয়। মহিলাটি তার সঙ্গীর মাথা থেকে দূরে মুখ করে আছে। তিনি জরায়ুর গতি এবং অনুপ্রবেশের গভীরতা নিয়ন্ত্রণ করেন। এইভাবে তিনি নিশ্চিত করতে পারেন যে গভীর অনুপ্রবেশ ঘটছে এবং বীর্য সহজেই যোনিতে চলে যায়।

মিশনারি

মিশনারি হলো পুরানো এবং নির্ভরযোগ্য পজিশন। এক্ষেত্রে পুরুষ উপরে থাকে এবং মহিলা তার পিছনে ভর দিয়ে শুয়ে থাকে ফলে পুরুষাঙ্গ গভীর অনুপ্রবেশে সাহায্য করে। গভীর অনুপ্রবেশের অর্থ হল বীর্য, একবার নির্গত হলে, জরায়ুর কাছাকাছি হবে, গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেবে। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, এটি সেরা যৌন অবস্থানগুলির মধ্যে একটি যা মহিলাদের দ্রুত অর্গাজম দিতে প্রমাণিত। আপনার পিঠের নীচের অংশে একটি বালিশ যুক্ত করা আপনাকে গর্ভাবস্থায় একটি অতিরিক্ত সুবিধা দেয়।

ডগি স্টাইল

ডগি স্টাইল, এটি পুরুষদের পছন্দের সেরা সেক্স পজিশন। মহিলাটি তার হাত ও পায়ে ভর করে নিচু হয় এবং পুরুষ তার লিঙ্গ যোনীতে ঢুকিয়ে দেন। এটির জন্য খুব বেশি পরিশ্রমের প্রয়োজন হয় না এবং একবার সঠিকভাবে সম্পন্ন হলে পুরুষ এবং মহিলা উভয়ই এটিকে উপভোগ করে।বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম,  এই সেক্স পজিশনে,একজন মহিলার জরায়ুমুখ আরও খুলে যায় এবং শুক্রাণু সহজেই ডিম্বাণুতে পৌঁছাতে এবং নিষিক্ত করতে পারে।

মুখোমুখি

উভয় অংশীদার একে অপরের মুখোমুখি, তাদের পা আঁকড়ে ধরে এবং সঠিক অনুপ্রবেশ নিশ্চিত করে। এই অবস্থানটি মহিলাকে তীব্র ক্লিটোরাল উদ্দীপনা দেয়,যা তাকে শুক্রাণু গ্রহণের জন্য প্রস্তুত করে। যেহেতু এই অবস্থানটি গভীর অনুপ্রবেশে সহায়তা করে, গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

হুইলব্যারো

এই যৌন অবস্থান অবশ্যই আপনার যৌন জীবনকে রোমাঞ্চকর করে তুলবে। পুরুষটি দাঁড়িয়ে থাকবে ,এবং মহিলাটি প্রথমে তার হাত এবং পায়ের উপর ভর দিয়ে থাকবে। পুরুষটি তখন তার সঙ্গীর পা পিছন থেকে ধরে এবং নিজের লিঙ্গ যোনিতে ঢোকানোর জন্য অবস্থান করে। এটি গভীর অনুপ্রবেশের ফলে গর্ভবতী হওয়া সহজ করে তোলে।

কাঁধে পা

এই অবস্থানে, মহিলা তার সঙ্গীর কাঁধে উভয় পা রেখে শুয়ে থাকে।। পুরুষ দুই পায়ের মাঝখানে থাকে এবং সামনে থেকে চাপ দেয়। আপনি যখন গর্ভধারণের চেষ্টা করছেন তখন মাধ্যাকর্ষণ একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ। যেহেতু এই যৌন অবস্থানে মহিলার জরায়ুর ক্ষেত্রটি সামান্য উঁচু হয়, তাই এটি মাধ্যাকর্ষণকে জরায়ুর দিকে শুক্রাণুর প্রবাহকে নির্দেশ করে, যার ফলে গর্ভধারণের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

বাচ্চা নেওয়ার জন্য কি খাবার খাওয়া উচিত

বাচ্চা নেওয়ার জন্য কি খাবার খাওয়া উচিত, অনেক সময় নারীর শরীরে ভিটামিন, আয়রন, ফলিক এসিড, ওমেগা-৩ ইত্যাদি উপাদান পরিমান মত না থাকায় তারা সন্তান ধারনের স্বাভাবিক ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। তাই নারীদের গর্ভধারনের জন্য শারিরীক ক্ষমতা বাড়াতে হবে। গর্ভধারন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য কিছু খাবার নিয়ে আলোচনা করা হলো।

ডিম

বিশেষ করে ডিমের কুসুম আপনাকে উর্বর করে তুলতে পারে। ডিম বি ভিটামিনের একটি ভালো উৎস, যা উর্বরতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ওমেগা ৩ ফ্যাট ফার্টিলিটির জন্যও গুরুত্বপূর্ণ এবং আপনি ওমেগা ৩ সমৃদ্ধ ডিম খেয়ে আপনার জন্মদানের ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে পারেন।

উদ্ভিজ্জ প্রোটিন

প্রোটিন সমৃদ্ধ ফল ও শাকসবজি উর্বরতা বৃদ্ধিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। গাঢ় শাক-সবজিতে রয়েছে আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, বি১২, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন-ই। রঙিন সবজিতে রয়েছে ভিটামিন-সি এবং বি৬। এগুলি সালাদ হিসাবে খাওয়া যেতে পারে বা পুরুষ এবং মহিলাদের উর্বরতা বাড়াতে রান্না করা যেতে পারে। এ ছাড়া ডাল ও বীজ গর্ভধারন ক্ষমতা বৃদ্ধিতে খুবই কার্যকরী।

নিয়ন্ত্রিত মাত্রায় প্রাণিজ প্রোটিন

প্রজনন ক্ষমতা উন্নত করতে প্রাণিজ প্রোটিন হ্রাস করা উচিত কিন্তু সম্পূর্ণরূপে বাদ দেওয়া উচিত নয়। কারণ শরীরে হরমোন ও অ্যান্টিবায়োটিক তৈরিতে এর ভূমিকা রয়েছে। লাল মাংস থেকে প্রোটিন, আয়রন,বি১২ এবং ওমেগা-৩ বা স্তন্যপায়ী প্রাণীর মাংস শরীরের চাহিদা মেটাতে পারে। খাদ্যতালিকায় নিয়ন্ত্রিত পরিমাণে মুরগি, ডিম ও মাছ রাখলে এই চাহিদা মেটানো সম্ভব।

ভিটামিন-ডি যুক্ত খাবার

ভিটামিন ডি-এর অভাবে অনেকেই সন্তান ধারণ করতে পারছেন না। ইয়েল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা বন্ধ্যা মহিলাদের উপর একটি সমীক্ষা চালিয়ে দেখেছেন যে তাদের মধ্যে মাত্র ৭% নারীর শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ডি রয়েছে। বাকি সবাই কমবেশি ভিটামিন-ডি-এর অভাবে ভুগছেন। তাই প্রজনন ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া প্রয়োজন। কিছু মাছ, মাংস এবং ডিমে এই ভিটামিন পাওয়া যায়। একটু মাছ-ভাত-ডিম খেয়ে শরীরে রোদ লাগালে এই ভিটামিন তৈরি হয় শরীরে। এ জন্য খাবার ছাড়াও সপ্তাহে অন্তত দুই দিন আধা ঘণ্টা রোদে হাঁটা যথেষ্ট।

পরিশেষে

যৌন মিলনের আগে ও সময় সঠিক মানসিকতা থাকাটাও জরুরি। আপনি সেই সময়ে গর্ভধারণ করবেন কিনা তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়া কেবল প্রক্রিয়াটিকে বাধা দেবে। পরিবর্তে,আপনার শিথিল হওয়া উচিত এবং সহবাসের প্রক্রিয়াটি উপভোগ করা উচিত। বাচ্চা নেওয়ার জন্য সহবাসের নিয়ম, আপনি একটি রোমান্টিক মুভি দেখতে পারেন, রাতের মেজাজ সেট করতে আপনার সঙ্গীর সাথে ডিনারে যেতে পারেন। আপনার সঙ্গীর সাথে গভীর এবং রোমান্টিক সংযোগ থাকা আপনার যৌন জীবনকে আরও ভাল করে তোলে।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *