বর্তমানে জনপ্রিয় পলিমারেজ চেইন রিএকশন

একটা ডিএনএ নমুনা থেকে খুব কম সময়ে মিলিয়ন বিলিয়ন ডিএনএ তৈরী করার একটি কৃত্রিম পদ্ধতি হলো পলিমারেজ চেইন রিএকশন বা পিসিআর।

পিসিআর এর জন্য প্রয়োজন হয়-
১.টার্গেট ডিএনএ
২.ডিএনএ পলিমারেজ এনজাইম
৩.দুটো প্রাইমার
৪.ডিঅক্সি নিউক্লিয়োসাইড ট্রাইফসফেট (dATP,dGTP,dCTP,dTTP)

পিসিআর এর ধাপগুলো নিম্নরূপ-
১.যে ডিএনএ থেকে অনেকগুলো ডিএনএ তৈরী করা হবে সেটি আলাদা করে নিতে হবে।
২.দুটো প্রাইমার তৈরী করতে হবে।
৩.টার্গেট ডিএনএ এর সাথে প্রাইমার,ডিএনএ পলিমারেজ ও অন্যান্য উপাদান মিক্সড করতে হবে।
৪.তাপ প্রদানের মাধ্যমে দুই স্ট্র্যান্ড বিশিষ্ট ডিএনএ টিকে দুইটি এক স্ট্র্যান্ডের ডিএনএ তে পরিণত করতে হবে।
৫.তাপমাত্রা কমিয়ে ঠান্ডা করতে হবে।
৬.প্রাইমারের বৃদ্ধি ঘটাতে হবে।
৭. ৪,৫,৬ নাম্বার ধাপের পুনারাবৃত্তি ঘটাতে হবে।

পিসিআর এর সুবিধা:
*কম সময়ে অনেক ডিএনএ তৈরী করা যায়।
*সামান্য পরিমাণ টার্গেট ডিএনএ এর প্রয়োজন পড়ে।
*পদ্ধতিটি জটিল নয়।
*কম খরচে সম্পাদন করা যায়।

পিসিআর এর অসুবিধা:
*ডিএনএ এর বেস সিকোয়েন্স জানতে হয়।
*ছোট ডিএনএ ব্যবহার করতে হয়।বড় ডিএনএ দিয়ে ফল পাওয়া যায় না।
*ভুল ফলাফল পাবার সম্ভাবনা থাকে।

পিসিআর এর ব্যবহার:
*রোগ নির্ণয় করা যায়।
*হরমোন,প্রোটিন,ভ্যাকসিন তৈরী করা যায়।
*অপরাধী সনাক্ত করা যায়।
*পিতৃত্ব নির্ণয় করা যায়।
*ক্যান্সার সনাক্ত করা যায়।
*টিস্যু টাইপিং এ ব্যবহৃত হয়।

অর্থাৎ, পলিমারেজ চেইন রিএকশন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রক্রিয়া।বর্তমানে এটি বহুল পরিমাণে ব্যবহার করা হয়।

©দীপা সিকদার জ্যোতি

Leave a Comment

betvisa