প্রেমের ফাঁদে ফেলে অশ্লীল ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইল

প্রেমে জড়িয়ে তিনি বাড়িতে ডেকেছিলেন। এরপরে তিনি মহিলার সাথে আপত্তিকর ছবি এবং ভিডিও ধারণ করে পুলিশের কাছে অর্থ দাবি করেন। তা না হলে পুলিশকে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। তবে তাদের লক্ষ্য সফল হয়নি। তাদের বুদ্ধিমত্তার কারণে ভুক্তভোগীরা নিজেই পুলিশ ফাঁদে পড়েছিল।


বুধবার রাতে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী থানার একতা আবাসিক এলাকার একটি ভবন থেকে সাংবাদিকসহ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সিটি পুলিশের এডিসি (পশ্চিম) পলাশ কান্তি নাথ বলেছেন, বৃহস্পতিবার এই গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন মাসুদ রানা, লক্ষ্মী রানী দাস ও নার্গিস আক্তার। পুলিশ জানায়, মাসউদ নিজেকে অনলাইন টেলিভিশন সাংবাদিক হিসাবে পরিচয় করিয়ে দেয়।

পুলিশ জানিয়েছে, সাংবাদিক হিসাবে ভবনের চতুর্থ তলায় একটি বাড়ি ভাড়া নিয়েছিলেন মাসুদ। দুই নারী নার্গিস এবং লক্ষ্মী তাঁর অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে সহযোগী। তার মোবাইল ফোনে প্রেমে পড়ে বুধবার রাতে নার্গিস ওই দুই যুবককে বাড়িতে ডেকেছিল। চলে যাওয়ার পরে, মাসউদ এবং লক্ষ্মী তাদের নগ্ন করে ফেলে এবং জোর করে নার্গিসের সাথে আপত্তিকর ছবি এবং ভিডিও তুলেছিল। তখন তারা তাদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে এক লাখ টাকা দাবি করে। তা না হলে তাকে পুলিশে সোপর্দ করার হুমকি দেয় তিনি।

একপর্যায়ে দু’জন যুবক ছুটে গেলেন বাসা থেকে। কলিংবেল ভবনের অন্যান্য বাড়িতে যেতেন। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পরে পুলিশকে অবহিত করা হয়। এরপরে পুলিশ তাদের সেখান থেকে গ্রেপ্তার করে।

এডিসি (পশ্চিম) পলাশ কান্তি নাথ জানিয়েছেন, খবর পেয়ে তিন অভিযুক্তকে তাত্ক্ষণিক অভিযানে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে একটি খেলনা পিস্তল, দুটি ছুরি এবং 24 ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া মাসুদ থেকে দুটি পত্রিকার পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তারা জিজ্ঞাসাবাদে বলেছিলেন যে তারা এর আগে একই প্রক্রিয়াতে এ জাতীয় অপরাধ করেছে। বৃহস্পতিবার তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Comment

betvisa