জীবনে কেন করবেন অপেক্ষা?

কবে দেখা হবে, কবে আসবে ঘুরতে যাওয়ার দিনটা,আবার কবে সব বন্ধুরা মিলে একসাথে রাস্তায় হাটবো,কবে ভালোদিন আসবে,কবে পড়াশুনার পার্টটা চুকিয়ে দিতে পারবো।

প্রতিদিন আমাদের কত কিছুর জন্য অপেক্ষা। নতুনভাবে কিছু পাওয়ার অপেক্ষা,ভুলগুলো সুধরে নিয়ে নতুন করে এগিয়ে যাওয়ার অপেক্ষা,অথবা কেউ কারও ভুলটা বুঝে ফিরে আসবে তার জন্য অপেক্ষা।


সময়ের কাজে আমরা বড্ড বেশি বন্দি।সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে মিলিয়ে প্রতিদিন নতুন সুর্যোদয় দেখা। আর সুর্যাস্তের সাথে সাথে নতুন দিনের অপেক্ষায় আরেকটা নতুন ইচ্ছে জুড়ে দেয়া।


কখনো কখনো আমরা চাই অনেক দ্রুত এগিয়ে যেতে। কোন একটা পরিস্থিতি থেকে বাচতে এগিয়ে যেতে চাই সামনে। যাই হোক না কেন যেই পরস্থিতিই আসুক না কেন সহ্য করার ক্ষমতাটা অর্জন করতে হবে।ভালোটা গ্রহণ করতে পারলে খারাপ্টাও গ্রহণ করা জানতে হবে। শত খারাপের মাঝেও অপেক্ষা করতে হবে ভালোটার জন্য।


জীবনটাই তো অদ্ভুত।কখন কি হবে সবই যেন আতংকের মতো।হুট করেই জীবনের মোড়টা ঘুরে যেতে পারে রঙিন কোন আলোর দিকে আবার কালো অন্ধকারেও ডুবে যেতে পারে। তবুও ক্যনভাসটা রাঙানোর ইচ্ছাটা আমাদের চিরজীবনের। তুলির ছোয়ায় কবে আবার রাঙাতে পারবো তার প্রতিক্ষা।

সবকিছু যদি চাওয়ার সাথে সাথেই পেয়ে যাই তাহলে আর মুল্য কই থাকলো। যে জিনিসটা আমরা যত কষ্ট করে পাই সে জিনিসটাকে আমরা তত বেশী আগলে ধরে রাখি।যত্ন করে রাখি।


ধৈর্য্য ধরে অপেক্ষা করতে হবে কাঙ্খিত জিনিসটা পাওয়ার। অপেক্ষাইতো শুদ্ধতম ভালোবাসার প্রতীক।

Reporter: নওমিন

Leave a Comment

betvisa