ছয় দিনেও খোঁজ মেলেনি মিয়ানমার সীমান্তে নিখোঁজ বাংলাদেশির

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় নাফ নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ বাংলাদেশি জেলে মোহাম্মদ ইলিয়াছের (৫০) এখনো খোঁজ মেলেনি। মাছ ধরার সময় মিয়ানমার সীমান্তে ঢুকে গেলে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি) ইলিয়াছ ও তাঁর সঙ্গীকে উদ্দেশ্য করে গুলি ছোড়ে। সঙ্গী নদী সাঁতরে ফিরে এলেও ইলিয়াছ নিখোঁজ হন।
নিখোঁজ ইলিয়াছ টেকনাফের হোয়াইক্যং (বিজিবি তল্লাশিচৌকি) এলাকার বাসিন্দা। ছয় দিন ধরে তাঁর নিখোঁজ থাকার তথ্য নিশ্চিত করেছেন হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আহমদ আনোয়ারী।

নিখোঁজ ইলিয়াছের সঙ্গী নদী সাঁতরে ফিরে আসা গুরা মিয়ার (৩৫) বরাত দিয়ে টেকনাফ-২ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার বলেন, গত বুধবার সকালের দিকে ইলিয়াছ নিখোঁজ হন। দুই জেলে জলসীমার শূন্যরেখা অতিক্রম করে মিয়ানমারের অন্তত ১০০ গজ ভেতরে ঢুকে মাছ ধরছিলেন। একপর্যায়ে বিজিপি সদস্যরা থামার জন্য নির্দেশ দিলে তাঁরা বাংলাদেশের জলসীমার দিকে আসার চেষ্টা করেন। তখনই দুই জেলেকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে বিজিপি।ফিরে আসা জেলে গুরা মিয়া বলেন, ঘটনার দিন নাফ নদীতে মাছ ধরার সময় তাঁদের দুজনকে উদ্দেশ্য করে গুলি ছোড়া হয়। এ সময় দুজনই নৌকা থেকে পানিতে লাফ দেন। পরে সাঁতরে টেকনাফে চলে আসেন তিনি। ইলিয়াছের বিষয়ে পরে আর জানতে পারেননি।

শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার বলেন, নিখোঁজ জেলের ভাগ্যে কী ঘটেছে, বিজিবি এখনো নিশ্চিত নয়। ইলিয়াছ গুলিবিদ্ধ হয়ে নিখোঁজ হয়েছেন, নাকি বিজিপির সদস্যরা ধরে নিয়ে গেছেন, তা এখনো জানা যায়নি। ঘটনার পরদিন বিজিপির সঙ্গে যোগাযোগ করে জেলে ফেরত চেয়ে একটি চিঠি পাঠানো হলেও এখনো চিঠির জবাব পাওয়া যায়নি।ইলিয়াছের ছেলে মোহাম্মদ তারেক বাবাকে ফিরে পাওয়ার আকুতি জানান। বলেন, জীবিত না থাকলেও যেন লাশটি অন্তত ফেরত পাওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

Leave a Comment

betvisa