গাছ লাগাতে গিয়ে পাওয়া গেল তরুণীর লাশ

বন কর্মকর্তারা গাছ লাগানোর জন্য বনের মধ্যে গর্ত খুঁড়ছিলেন। এ সময় একটি গর্ত খুঁড়তে গিয়ে মানবদেহের হাড়গুলি বেরিয়ে আসে। আরও কিছু খনন করার পরে, প্রচন্ড দুর্গন্ধের সাথে পচা লাশটি বেরিয়ে এল। ধারণা করা হচ্ছে কিছুদিন আগে লাশটি পুঁতে রাখা হয়েছিল।
দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের বাঁধন আদর্শগ্রাম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার বেলা তিনটার দিকে বিরামপুর পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, দেহটি ছিল এক মহিলার। ধারনা করা হয় ,শাড়ি পরেছিলেন তিনি। ২৮-৩০ বছরের মধ্যে বয়স। তবে শাড়ি ও শরীরের বিভিন্ন অংশ বিশেষ করে মুখ পুড়ে গেছে। হাতের আঙুলগুলি বাদ দিয়ে পুরো শরীর মাটির নিচে ছিল। পরে স্থানীয়রা বিরামপুর পুলিশকে খবর দেয়।
বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত জানান, তথ্য পেয়ে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দেখা গেছে যে পুরো শরীরে আগুন লেগেছে। এটি শাড়িতে জড়িয়ে মাটির নিচে কবর দেওয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ৫-৬ দিন আগের ঘটনা এটি, শরীরটি এত গলে গেছে, এমনকি একটি আঙুলের ছাপ নেওয়াও সম্ভব হয়নি। সিআইডি পুলিশ ঘটনাস্থলে যান। পঁচা লাশ উদ্ধার করে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
ওসি আরও জানান, এখনও পর্যন্ত স্থানীয়দের কেউই লাশ শনাক্ত করতে পারেনি। গত এক সপ্তাহে বিরামপুর থানায় কেউ নিখোঁজ ব্যক্তি অভিযোগ করেননি। কেউ অভিযোগ দায়ের করলে, তা আমলে নিয়ে পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে।

Leave a Comment