অবকাঠামোগত উন্নয়ন হচ্ছে পাঠ্যক্রম, মূল্যায়ন পদ্ধতি পরিবর্তনে

শিক্ষার মান উন্নয়নে পাঠ্যক্রম সংশোধন, মূল্যায়ন পদ্ধতি পরিবর্তন ও শিক্ষকদের প্রশিক্ষণসহ অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। আজ শনিবার দুপুরে চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভা উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার মান উন্নয়নে সবকিছু করা হচ্ছে। শেখ হাসিনা সরকার ২০০৯ থেকে ২০১৮ সাল ১০টা বছর সব শিশুর জন্য কাজ করে গেছে। তিনি আরও বলেন, ‘সবাইকে যখন শিক্ষার আওতায় আনতে পেরেছি, এখন আমরা শিক্ষার মান উন্নয়নে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি। সেই জন্য পাঠ্যবইয়ের কারিকুলাম সংশোধন, মূল্যায়ন পদ্ধতি পরিবর্তন, শিক্ষকদের প্রশিক্ষণসহ অবকাঠামোর উন্নয়ন করা হচ্ছে। আমরা বিশ্বাস করি, এর মধ্য দিয়েই মানসম্মত শিক্ষা দেওয়া সম্ভব।’


শুধু বই পড়ে নয়, বাচ্চারা খেলাধুলার মধ্য দিয়ে, আনন্দের মধ্য দিয়ে শিখবে উল্লেখ করে দীপু মনি বলেন, কমিউনিটির বিভিন্ন কাজকর্মের মধ্য দিয়ে শিখবে। যেটাকে বলে অভিজ্ঞতাভিত্তিক শেখা কিংবা করে শেখা।

বিএনপি জীবদ্দশায় ক্ষমতায় আসতে পারবে কি না সন্দেহ: হানিফ
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপি জনগণ থেকে এত দূরে সরে গেছে যে আগামী নির্বাচন দূরে থাক, তাদের জীবদ্দশায় ক্ষমতায় আসতে পারবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ আছে। আজ শনিবার দুপুরে চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভা উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপির নির্বাচনে জয়লাভ করার কোনো সুযোগ নেই। নির্বাচনে তারা জনগণের কাছ থেকে আবারও ধিক্কৃত হবে। কারণ, তারা দেশ ও জনগণের জন্য এমন কোনো কাজ করেনি যে জনগণ তাদের প্রতি আস্থাশীল হবে। অতীতের কুকর্ম, সন্ত্রাস, নাশকতামূলক কার্যক্রমের জন্য জনগণ থেকে এতটাই দূরে সরে গেছে যে আগামী নির্বাচন তো দূরের কথা, তাদের জীবদ্দশায় আর ক্ষমতায় আসতে পারবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ আছে।

দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের বিষয়ে আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা চাই সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোটদান করে তাদের পছন্দের দলকে বিজয়ী করুক। তবে বাংলাদেশে আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার আসবে না।’

প্রতিনিধি সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম প্রমুখ। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ ও পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী। সভায় কেন্দ্রীয় ও তৃণমূল পর্যায়ের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Comment

betvisa