অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার

অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ড. তারেক শামসুর রেহমান মারা গেছেন।

শনিবার উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পের তার ফ্ল্যাটে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

এ সময় বাড়িতে কেউ ছিল না। পুলিশ দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে। তার মৃত্যুর কারণ এখনও জানা যায়নি।

রাজউকের উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পের পরিচালক মো। মোজাফফর আহমেদ রংপুর ডেইলীকে তাঁর মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আজ সকালে তার গৃহকর্মী অধ্যাপক রেহমানের বাড়িতে এসেছিলেন। তিনি বাইরে থেকে ঘণ্টা বাজালেন কিন্তু দরজা খুললেন না। বিষয়টি পরে নিরাপত্তারক্ষীকে জানানো হয়েছিল। তখন আশেপাশের সবাই ফ্ল্যাটে গিয়ে চিৎকার করে উঠল। তবে তার সাড়া পাওয়া যায়নি। বেলা ১১টার দিকে তুরাগ থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

মোজাফফর আহমেদ আরও জানান, তারেক শামসুর রেহমানের লাশ বাথরুমের সামনে পড়ে ছিল। তিনি সেখানে বমি করেছিলেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের প্রাক্তন সদস্য তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান ছিলেন।

তিনি আন্তর্জাতিক রাজনীতি, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক এবং বৈদেশিক নীতি সম্পর্কিত বেশ কয়েকটি বই রচনা করেছেন। তুলনামূলক রাজনীতি নিয়েও তাঁর বেশ কয়েকটি বই রয়েছে।

অধ্যাপক রেহমান আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে পিএইচডি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স এবং মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

শিক্ষকতা ছাড়াও। রেহমান নিয়মিত কলাম লিখতেন। তাঁর কলাম নিয়মিত প্রায় প্রতিটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত হত।

তাঁর উল্লেখযোগ্য বইগুলির মধ্যে রয়েছে ইরাক-পরবর্তী যুদ্ধের আন্তর্জাতিক রাজনীতি, গণতন্ত্রের শত্রু, নিউ ওয়ার্ল্ড অর্ডার এবং আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিশ্ব রাজনীতি চলচ্চিত্র, উপ-আঞ্চলিক জোট, ট্রানজিট ইস্যু এবং গ্যাস রফতানির বিষয়সমূহ, বাংলাদেশ: রাষ্ট্র ও রাজনীতি, বাংলাদেশ: রাজনীতির ২৫ বছর , বাংলাদেশ: রাজনীতি চার দশক, গঙ্গার জল চুক্তি: দৃষ্টিভঙ্গি এবং সম্ভাবনা, সোভিয়েত-বালদেশ সম্পর্ক, বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর, ইত্যাদি।

By নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরের অল্প সময়ে গড়ে ওঠা পপুলার অনলাইন পর্টাল রংপুর ডেইলী যেখানে আমরা আমাদের জীবনের সাথে বাস্তবঘনিষ্ট আপডেট সংবাদ সর্বদা পাবলিশ করি। সর্বদা আপডেট পেতে আমাদের পর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *